সু চির হাতে আর একটা সুযোগই আছে : জাতিসংঘ

ডেস্ক রিপোর্টার, দুরবিন ডটকম:

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা বিশেষ করে মুসলিমদের ওপর নির্যাতন বন্ধে দেশটির ডি ফ্যাক্টো নেত্রী অং সাং সু চি-কে শেষবারের মতো সুযোগ দেয়া হলো। অন্যথায় পরিস্থিতি ভয়ংকর হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিয় গুতেরাস।

বিবিসি-কে দেয়া এক সাক্ষতকারে গুতেরাস বলেন, ‘যদি এই মুহূর্তে সু চি কোন পদক্ষেপ না নেয়, তাহলে পরিস্থিতি চরম বিপর্যয় ডেকে আনবে।’

রাখাইনের রোহিঙ্গা সংকটকে জাতিসংঘ ‘জাতিগত নির্মূল’ বলে আখ্যা দিয়েছে।

মিয়ানমার বলছে,গত মাসে শেষটির নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর হামলার কারণেই এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। তবে সাধারন জনগণের ওপর কোন হামলার ঘটনা ঘটেনি। মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ রাখাইনে পুলিশের ওপর হামলার পরেই চড়াও হয় দেশটির সেনাবাহিনী।

আগামী মঙ্গলবার জাতিসংঘের অধিবেশনে বক্তব্য রাখবেন মহাসচিব অ্যান্তোনিয় গুতেরাস। এর আগে বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষতকারে তিনি এসব কথা বলেন।

গুতেরাস বলেন, ‘যদি সু চি এই মুহূর্তে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার কোন উদ্যোগ না নেয়, তাহলে এর পরিণতি ভয়ংকর হবে। দুঃখজনক ভাবে আমি বুঝতে পারছি না, তখন সেই ভয়ংকর পরিস্থিতি কিভাবে সামাল দেয়া যাবে।’

তিনি রোহিঙ্গাদের রাখাইনে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য সু চি আহ্বানও জানান।

জাতিসংঘের মহাসচিব এও মেনে নেন যে, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী এখনও দেশটির ক্ষমতার উচ্চ আসনে বসে রয়েছে।

এদিকে শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সাং সু চি রোহিঙ্গা ইস্যুতে নির্লিপ্ততার জন্য ব্যাপক ভাবে সমালোচিত হচ্ছেন। এমনকি সু চি এবারের জাতিসংঘ অধিবেশনেও যোগ দিচ্ছেন না এবং তার দাবি, রোহিঙ্গাদের নিয়ে অনেক ভুল তথ্য দিচ্ছে সংবাদমাধ্যমগুলো। সু চি বলেন, সন্ত্রাসীরা নিজেদের স্বার্থে ভুয়া খবর প্রচার করছে।

চার লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, এমন অভিযোগের পর সু চি-র প্রতি হুঁশিয়ারি দিলেন গুতেরাস।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৯ ঘন্টা, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭/টিআর/দুরবিন ডটকম।


সম্পাদক: আবু মুস্তাফিজ

৩/১৯, ব্লক-বি, হুমায়ুন রোড, মোহাম্মদপুর, ঢাকা