কোরীয় উপদ্বীপে ফের যুক্তরাষ্ট্রের বিমান মহড়া

ডেস্ক রিপোর্ট, দুরবিন ডটকম:

কোরীয় উপদ্বীপে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সঙ্গে মহড়া চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের দুটি কৌশলগত বোমারু বিমান। এরপর উত্তর কোরিয়া অভিযোগ করেছে, বোমারু বিমানের ওই মহড়া ছিল ‘অতর্কিত পারমাণবিক হামলার মহড়া‘।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ১২ দিনব্যাপি এশিয়া সফর শুরু আগে এই মহড়া করার ফলে ওই অঞ্চলে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে।

এ মহড়া বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়। উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ শুক্রবার খবরটি প্রথম প্রকাশ করে। এতে বলা হয়, এটি স্পষ্ট যে যুক্তরাষ্ট্রের মতো সাম্রাজ্যবাদী দুর্বৃত্তরা কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতির অবনতি ঘটাচ্ছে এবং পারমাণবিক যুদ্ধ শুরুর পরিকল্পনা করছে।

মহড়ার পরে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহিনী এক বিবৃতিতে জানায়, তাদের দুটি বি-ওয়ান বোমারু বিমান ওই মহড়ায় অংশ নিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের যুদ্ধবিমানও অংশ নেয় এতে।

মার্কিন বিমানবাহিনীর মুখপাত্র ক্যাপ্টেন কানদিস দিলিত্তি বলেন, বোমারু বিমানের এই ধারাবাহিক উপস্থিতি আগে থেকেই পরিকল্পিত ছিল এবং সাম্প্রতিক কোনো ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় বৃহস্পতিবারের মহড়াটি অনুষ্ঠিত হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, প্রশান্ত মহাসাগরে সবসময় বোমারু বিমান প্রস্তুত রাখার যে লক্ষ্য রয়েছে তার অংশ হিসাবেই এ মহড়া দেওয়া হয়েছে।

ট্রাম্প রবিবার থেকে তার ১২ দিনের এশিয়া সফর শুরু করবেন। এ সফরকালে দক্ষিণ কোরিয়া ও চীনে যাওয়ার আগে জাপানে প্রথম সফর করবেন তিনি। এরপর তিনি যাবেন ভিয়েতনাম ও ফিলিপাইনে।

জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে উত্তর কোরিয়ার একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র ও পারমাণবিক বোমার পরীক্ষা ট্রাম্পের নেতৃত্বের জন্য একটি বড় আন্তর্জাতিক চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে। মার্কিন কর্মকর্তারা বলেছেন, উত্তর কোরিয়াকে নিবৃত্ত করার ব্যাপারে এই সফরে আন্তর্জাতিক সমর্থন বাড়ানোর চেষ্টা করবেন ট্রাম্প। সূত্র: ওয়েবসাইট

বাংলাদেশ সময়: ১১০৬ ঘন্টা, ০৪  নভেম্বর, ২০১৭/টিআর/দুরবিন ডটকম।


সম্পাদক: আবু মুস্তাফিজ

৩/১৯, ব্লক-বি, হুমায়ুন রোড, মোহাম্মদপুর, ঢাকা