যুক্তরাষ্ট্রে নিয়োজিত রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠিয়েছে ফিলিস্তিন

ডেস্ক রিপোর্টার, দুরবিন ডটকম:

যুক্তরাষ্ট্রে নিয়োজিত নিজেদের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠিয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। ফিলিস্তিন কতৃপক্ষ বলছে, আলোচনার জন্য তাকে জরুরীভাবে ডেকে পাঠানো হয়েছে। খবর আল জাজিরার।

৬ ডিসেম্বর ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে এক তরফভাবে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি দেওয়ার পর থেকেই ফিলিস্তিনি কর্মকর্তা বলে আসছিলেন তারা শান্তি প্রক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের কোনো উদ্যোগকে আর মেনে নেবে না। ট্রাম্পের ওই পদক্ষেপের ফিলিস্তিনসহ মুসলিম বিশ্বে ব্যাপক প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়েছে।

রাষ্ট্রদূতকে আলোচনার জন্য ডাকা হয়েছে বলে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বিবিসির এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল-মালিকি বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের (পিএলও) দূত হোসাম জুলমতকে ডেকে পাঠানো হয়েছে।

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস স্পষ্টই জানিয়ে দিয়েছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার পর ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংকটের ব্যাপারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা তিনি আর মেনে নেবেন না।

জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসাবে মার্কিন স্বীকৃতির পর গাজা ও পশ্চিম তীরে নতুন করে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। এতে এর মধ্যেই নিহত হয়েছেন অন্তত ১৩ জন।

মার্কিন ওই স্বীকৃতি প্রত্যাহারের আহবান জানিয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে একটি প্রস্তাবও গ্রহণ করেছে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ। যে প্রস্তাবে জেরুসালেম প্রশ্নে কোন একক দেশের সিদ্ধান্ত 'অকার্যকর' ও 'বাতিলযোগ্য' বলে গ্রহণ করা হয়।

এমন প্রেক্ষাপটেই যুক্তরাষ্ট্রে পিএলও রাষ্ট্রদূত হুসাম জমলতকে ডেকে পাঠিয়েছেন ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল মালিকি।

রবিবারও আব্বাস বলেছেন, জেরুসালেম হচ্ছে ফিলিস্তিনি জনগণের চিরস্থায়ী রাজধানী।

১৯৬৭ সালে জর্ডানের কাছ থেকে পূর্ব জেরুসালেম দখল করে ইসরাইল এবং এরপর থেকে তারা পুরো শহরটিকে রাজধানী বলে দাবি করে আসছে, যা ইসরাইল ফিলিস্তিনি সংঘর্ষের অন্যতম প্রধান কারণ। এই দাবিকে কখনোই স্বীকৃতি দেয়নি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

পূর্ব জেরুসালেমকে ভবিষ্যতের ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের রাজধানী হিসাবে দাবি করে ফিলিস্তিন, যা নিয়ে শান্তিচুক্তির পরবর্তী ধাপে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। আল জাজিরা, বিবিসি।

বাংলাদেশ সময়: ১১৪৮ ঘন্টা, ১ জানুয়ারি, ২০১৮/টিআর/দুরবিন ডটকম।


সম্পাদক: আবু মুস্তাফিজ

৩/১৯, ব্লক-বি, হুমায়ুন রোড, মোহাম্মদপুর, ঢাকা